All Public examination Results

পথচারীদের অসতর্কতার কারণে রাজধানীতে বাড়ছেই সড়ক দুর্ঘটনা








যানবাহনের বেপরোয়া গতি, চালকের অদক্ষতা এবং পথচারীদের অসতর্কতার কারণে রাজধানী ঢাকায় বেড়েই চলেছে সড়ক দুর্ঘটনা। বিশ্লেষকরা বলছেন, জনসচেতনতা ছাড়া সড়ক দুর্ঘটনা রোধ করা সম্ভব নয়। আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর সদস্যরা বলছেন, সড়ক দুর্ঘটনা রোধে নেয়া হয়েছে সব ধরনের পদক্ষেপ।

এভাবেই নিজের ভাগ্নির নিহত হবার কথা জানাচ্ছিলেন হতভাগা এক মামা। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে রাজধানীর ঢাকায় যেমন বাড়ছে মানুষ তেমনি বাড়ছে যানবাহন। ঘটছে সড়ক দুর্ঘটনা।

সরকারি একটি প্রতিষ্ঠানের গবেষণায় দেখা গেছে, ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে ২৭ মার্চ পর্যন্ত সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে ৫৫টি। এতে নিহত হয়েছেন ৫৭ জন। আহত হয়েছেন ১১৩ জন।

বিশ্লেষকরা বলছেন, যানবাহনের বেপরোয়া গতি, চালকের অদক্ষতা এবং পথচারীদের অসতর্কতার কারণে বাড়ছে সড়ক দুর্ঘটনা।

আরও দেখুনঃ

সড়ক বিশ্লেষণ একই রুটে অনেক কোম্পানির যাত্রীবাহী বাস থাকায় তারা যাত্রীর জন্য বেপরোয়া আচরণ করে। ফলে দেখা যাচ্ছে, তারা পথচারী সাথে দুর্ঘটনা ঘটাচ্ছে। মোটরসাইকেলের সঙ্গে দুর্ঘটনা ঘটছে। এছাড়াও পথচারীদের অসতর্কতার কারণে ঘটছে দুর্ঘটনা।

জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে ইতোমধ্যে বিভিন্ন পরিকল্পনার কথা জানালো আইনশৃঙ্খলাবাহিনী।

সট: সড়ক দুর্ঘটনা রোধে বাসচালকদের গতি নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। সেই সঙ্গে পথচারীদেরও দায়িত্ববান হতে হবে। তারা ফুটওভারব্রীজ ব্যবহার করলে দুর্ঘটনা অনেকাংশেই কমবে।

আইনের যথাযথ প্রয়োগ এবং জনসচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমেই সড়ক দুর্ঘটনা রোধ করা সম্ভব বলে মত বিশ্লেষকদের।

Loading...