All Public examination Results

জন্মদিনে আমিরের ‘খুল্লাম-খুলা’ রোমান্টিকতা সবাইকে তাক লাগিয়ে দিল

 

 

 

 

১৯৯৬ সালে ‘রাজা হিন্দুস্থানী’ ছবির একটি দৃশ্যে সহ-অভিনেত্রী কারিশমা কাপুরের ঠোঁটে বৃষ্টির মধ্যে চুমু খেয়েছিলেন নায়ক আমির খান। ২০১৭ সাল পর্যন্ত সেটিই ছিল বলিউডের সবচেয়ে দীর্ঘতম চুমোর দৃশ্য। গত বছর ‘আ জেন্টলম্যান’ ছবির মাধ্যমে সে রেকর্ড ভেঙে দেন এ প্রজন্মের জ্যাকুলিন ফার্নান্ডেজ ও সিদ্ধার্থ মালহোত্রা। পরিচালক কাট বলার পরেও নাকি তারা একে অপরকে চুমো খাচ্ছিলেন।

তবে এ তো গেল অনস্ত্রিন চুমো খাওয়ার গল্প। ক্যামেরার বাইরে বাস্তবে অভিনেতা-অভিনেত্রীদের রোমান্টিকতার ব্যাপারে কে কতটুকু জানেন? ৫৩ তম জন্মদিনে সকলকে সেটাই জানালেন মিস্টার পারফেকশনিস্ট আমির খান। এদিন স্ত্রী কিরণ রাওকে সর্বসমক্ষে খেলেন ‘খুল্লাম-খুলা’ ভিজে চুমো। জন্মদিনে আমিরের এই লুক তাক লাগিয়ে দিয়েছে সবাইকেই।

জন্মদিনে আমিরের ‘খুল্লাম-খুলা’ রোমান্টিকতা সবাইকে তাক লাগিয়ে দিল

সংবাদমাধ্যমের সামনে একবার নয়, স্ত্রী কিরণকে দুই বার ঘনিষ্ঠভাবে চুম্বন করেছেন আমির। সেই দৃশ্য দুটি ক্যামেরাবন্দি করতে ভোলেননি চিত্রগ্রাহকরা। মিস করবেনই বা কেন! লুকিয়ে-চুরিয়ে তো নয়, সংবাদমাধ্যমের সামনেই তো হয়েছে একজন সুপারস্টার স্বামী কর্তৃক স্ত্রীকে ভালোবাসার প্রদর্শন।

নিজের ৫৩ তম জন্মদিনটা পরিবারের সঙ্গে কাটাবেন বলে ‘ঠগস অব হিন্দস্থান’ ছবির শুটিং ছেড়ে যোধপুর থেকে মুম্বাই ফিরে আসেন নায়ক আমির খান। ফিরেই তিনি বিমানবন্দরে সংবাদমাধ্যমের সামনে জন্মদিনের সেলিব্রেশনের পাশাপাশি স্ত্রী কিরণ রাওয়ের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হন।

শুধু বিমানবন্দরেই নয়, মুম্বাইয়ের বাড়িতে কেক কেটে জন্মদিন উদযাপনের সময়ও আরও একবার স্ত্রী কিরণকে প্রকাশ্যে ভিজে চুমো উপহার দিয়ে চমকে দেন পাপাৎরাজিদের। এ সময় তার সন্তানরাও উপস্থিত ছিলেন।

অব্যশ এটাই প্রথম নয়, ভারতের এমএএমআই চলচ্চিত্র উৎসবে এই মিষ্টি কাপলকে চুম্বনরত অবস্থায় দেখা গিয়েছিল। ২০১১ সালেও আমির-কিরণের চুম্বনের সাক্ষী হয়েছিলেন অসংখ্য অভিনেতা-অভিনেত্রী, ভক্ত-অনুরাগী ও ফোটো সাংবাদিকরা।

আমির খান বর্তমানে ব্যস্ত রয়েছেন তার নতুন ছবি ‘ঠগস অব হিন্দাস্থান’ এর শুটিং নিয়ে। এই শুটিংয়েরই এক ফাঁকে পরিবারের সঙ্গে বুধবার ৫৩ তম জন্মদিন উদযাপন করলেন তিনি। আমিরের নতুন প্রজেক্ট ‘ঠগস অব হিন্দুস্থান’ এ আরও আছেন বলিউড শাহেনশাহ অমিতাভ বচ্চন ও অভিনেত্রী ক্যাটরিনা কাইফ।

Loading...