All Public examination Results

কতদিন পর্যন্ত জামিন পেলেন খালেদা জিয়া ?








বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় জামিন আগামী ৫ এপ্রিল পর্যন্ত বর্ধিত করেছেন আদালত।

বুধবার (২৮ মার্চ) ঢাকার বকশীবাজারে আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ৫নং বিশেষ জজ আদালতের বিচারক ড. আখতারুজ্জামান এ আদেশ দেন।

বুধবার বেলা ১১টার দিকে ঢাকা মহানগর পিপি (পাবলিক প্রসিকিউটর) আব্দুলাহ আবু সমকালকে বলেন, খালেদা জিয়াকে আজ আদালতে হাজির করার সকল প্রস্তুতি আমাদের ছিল কিন্তু কারাগারের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন খালেদা জিয়া অসুস্থ। তাকে বাইরে বের করা যাবে না। তাই সকল প্রস্তুতি নেওয়ার পরও আজ তাকে আদালতে হাজির করা সম্ভব হচ্ছে না।

আরও দেখুনঃ

প্রসিকিউশনের পক্ষে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল বলেন, ‘দুইজন আসামি অনুপস্থিত। একজন আসামি খালেদা জিয়া আদালতে আসনেনি। কি কারণে তিনি আসেনি এটা আমার জানা নেই। এটা কারা কর্তৃপক্ষ বলতে পারবে। অনিবার্য কারণে তাকে আনা হয়নি।’

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট্র দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের দণ্ডপ্রাপ্ত হয়ে গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে পুরান ঢাকার সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি আছেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া।

গত ১৩ মার্চ রাজধানীর বকশীবাজারে আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক ড. আখতারুজ্জামান জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় ২৮ ও ২৯ মার্চ খালেদা জিয়াকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করতে কারা কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন।

খালেদা জিয়ার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া সমকালকে বলেন, যেহেতেু আদালত থেকে প্রোডাকশন ওয়ারেন্ট পাঠানো হয়েছে আমরা ধরেই নিয়েছি ম্যাডামকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হবে। সে ভাবেই তাদের প্রস্তুতি ছিল।

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট্রের নামে আসা ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ২০১০ সালের ৮ আগষ্ট তেজগাঁও থানায় এ মামলা দায়ের করে দুদক। তদন্ত কর্মকর্তা হারুন অর রশিদ ২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি খালেদা জিয়াসহ চার জনকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

Loading...